এইমাত্র পাওয়া সংবাদঃ এক লাখ শিক্ষকের বিরুদ্ধে জাল সনদে চাকরির অভিযোগ

তিনটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবৈধ ক্যাম্পাস থেকে ভুয়া বিএড সনদ নিয়ে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রায় এক লাখ শিক্ষকের চাকরি করার অভিযোগ উঠেছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তর বিষয়টি নিয়ে অনুসন্ধান করছে। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলছে, তাদের নাম ভাঙিয়ে কেউ এসব সনদ বিক্রি করেছে।

ঠাঁকুরগাওয়ের ভাংবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় এবং ফুলবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০ জন শিক্ষক ২০০৬ সালে একই সঙ্গে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি, শান্তা মরিয়ম ইউনিভার্সিটি, রয়েল ইউনিভার্সিটির পঞ্চগড় শাখা থেকে বি এড সনদ নেয়।

অভিযোগ আছে, ক্লাস ছাড়া নামমাত্র পরীক্ষা দিয়ে আবার অনেকে কোন প্রকার ক্লাস-পরীক্ষা না দিয়েই এই তিন বিশ্ববিদ্যালয়ের আউটার ক্যাম্পাস থেকে সনদ নেন।

সারাদেশে একলাখের মত বেসরকারি স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা শিক্ষকের বিএড সনদই এভাবে আউটার ক্যাম্পাস থেকে নেয়া। যেসব ক্যাম্পাসের কোন বৈধতা নেই।

আউটার ক্যাম্পাস পরিচালনা করে সনদ বাণিজ্যের বিষয়ে এশিয়ান বিশ্ববিদ্যালয় ক্যামেরার সামনে কোন কথা বলেন নি। তবে আগে ১৪ টি আউটার ক্যাম্পাস পরিচালনার কথা তারা স্বীকার করেন।

রয়েল এবং শান্তা মারিয়াম কর্তৃপক্ষ বলছে, এসব সনদ দেয়ার সাথে তাদের কোন সংশ্লিষ্টতা নেই। অন্য কেউ নাম ভাঙ্গিয়ে এসব সনদ দিয়েছে।

এদিকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তর বলছেন এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের আউটার ক্যাম্পাসের বিএড সনদ নিয়ে তারা অনুসন্ধান করছেন।

এসব শিক্ষকদের যারা নিয়োগ দিয়েছে তাদেরকেও বিচারের আওতায় নিয়ে আসার দাবি শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের।

 

PDF ফাইল ডাউনলোড করতে নিচের ছবিতে ক্লিক করুন

 

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *