মারা যাওয়ার আগে নিজের খালার কাছে যা বলেছিল সেই রাজীব!

সবার আগে আপডেট পেতে পেইজে লাইক দিন

রাজধানীতে বেপরোয়া দুই বাসের চাপায় হাত হারানো তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজিব হোসেন মারা গেছেন গত ১৭ এপ্রিল। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেলের আইসিইউ’তে তিনি মারা যান।

 

গত ৩ এপ্রিল দুপুরে বিআরটিসির একটি দোতলা বাসের পেছনের ফটকে দাঁড়িয়ে গন্তব্যের উদ্দেশে যাচ্ছিলেন মহাখালীর সরকারি তিতুমীর কলেজের স্নাতকের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র রাজীব হোসেন।

বাসটি হোটেল সোনারগাঁওয়ের বিপরীতে পান্থকুঞ্জ পার্কের সামনে পৌঁছলে হঠাৎ পেছন থেকে স্বজন পরিবহনের একটি বাস বিআরটিসি বাসটির গা ঘেঁষে অতিক্রম করে। দুই বাসের প্রবল চাপে গাড়ির পেছনে দাঁড়িয়ে থাকা রাজীবের হাত শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

ওই ঘটনার পর পথচারীরা রাজীবকে পান্থপথের শমরিতা হাসপাতালে ভর্তি করেন। এরপর তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হয়।

 

মৃত্যুর আগে রাজীব তার ছোট খালা হ্যাপি আক্তারের সাথে বলেছেন শেষ কথা। তার খালা জাহানারা বেগম বলেন, ‘রাজীবের মৃত্যুর একদিন আগে ছোট খালা হ্যাপী বেগমের কাছে হাসপাতালে কেঁদে দিয়ে রাজিব বলেছিল, কোনো দিনও প্রাইভেট পড়লাম না, নিজে নিজে পড়েছি। ইংরেজী গ্রামার ভালো ভাবে পড়তে পারিনি।

কারো কাছে গেলে এক সময় বুঝিয়ে দিতেন আরেক সময় দিতেন না। নিজে নিজেই পড়েছি। ভালো ভাবে পড়তে পারিনি। তাহলে চাকরি হবে কী করে?’

 

জাহানারা আরও বেগম বলেন, ‘আমি তাকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম, আমি কে? সে উত্তরে বলেছিল, তুমি আমার হ্যাপী খালা, আর তুমি ডাকে চাকুরী করো। কলোনীতে থাক।’ এই কথাগুলো বলেই কেঁদে উঠেন জাহানারা বেগম।

 

PDF ফাইল ডাউনলোড করতে নিচের ছবিতে ক্লিক করুন

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *